আটক করা যাবে না রাজীব কুমারকে, ভারতের সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশ

কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করা যাবে না বলে নির্দেশ দিয়েছেন ভারতের শীর্ষ আদালত। মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টে শুনানি ছিল সিবিআই-রাজীব কুমার মামলার।

শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ-এর নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চ জানান, আপাতত রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করা যাবে না। তবে তদন্তের জন্য নিরপেক্ষ কোন জায়গায় তাকে সিবিআই-এর সামনে হাজিরা দিতে হবে।

সে নির্দেশ অনুযায়ী, ২০ ফেব্রুয়ারি মেঘালয়ের শিলং-এ সশরীরে শিলং-এ সিবিআই-এর সামনে তাকে হাজিরা দিতে হবে। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি মামলার পরবর্তী শুনানি।
রায়ের পাশাপাশি রাজ্যের মুখ্যসচিব মলয় দে, পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্র এবং রাজীব কুমারে বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার নোটিশ পাঠিয়েছে শীর্ষ আদালত। ১৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তাদেরকে ওই নোটিশের জবাব দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তাদের জবাব খতিয়ে দেখে পরবর্তী পদক্ষেপে নেবে শীর্ষ আদালত। গত রবিবার বিকালে রাজীব কুমারের সরকারি বাসায় কাজে বাধার পরিপ্রেক্ষিতেই মামলা করে সিবিআই।

রাজীব কুমারের বাড়িতে সিবিআই’এর অভিযানের ঘটনার প্রতিবাদে কলকাতার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ধরনায় বসেন। আদেশের পর মমতা বলেন, সুপ্রিম কোর্টের এই রায় এ রাজ্যের মানুষের, দেশের মানুষের নৈতিক জয়। বিচারব্যবস্থার প্রতি আমাদের সম্পূর্ণ আস্থা রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, নরেন্দ্র মোদির সরকার আর বেশিদিন থাকবে না। শীর্ষ আদালত গণতন্ত্রের পক্ষে কথা বলেছে। আদালত বিজেপি সরকারের ষড়ন্ত্রকে ভেস্তে দিয়েছে।

এই সংবাদটি বাংলাদেশ প্রতিদিন অনলাইন পোর্টাল থেকে সংগ্রহীত

রাজীবের জন্য আমি জীবন দিতেও রাজি: মমতা

“রাজীব চোর? কার টাকা নিয়েছে ও? আমি ওর জন্য জীবন দিতেও রাজি।” ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার মেট্রো চ্যালেনে ধরনা বা অবস্থান ধর্মঘটে থেকে এভাবেই গর্জে উঠেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। তারপর তিনি জানান “রাস্তায় দাঁড়িয়ে লড়াই করব আমি। কী হবে আমার? ৩৫৬ ধারা? আমার কাছেও ৪২০ ধারা রয়েছে। তিনি আবারও সতর্ক করেন, “৩৫৫,৩৫৬ হবে? এত সস্তা? আমাদেরও ১৪৪ রয়েছে।”

উল্লেখ্য, ১৪৪ ধারার কথা উল্লেখ করেই মুখ্যমন্ত্রী কার্যত বুঝিয়ে দিলেন, যদি ৩৫৫, ৩৫৬ ধারা প্রয়োগ করা হয়, তবে রাজ্যে ঢোকা বন্ধ করে দেবেন তিনি।

এরই সাথে মমতা আরও জানান, রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে না পেরে ব্যক্তিগতভাবে একজন অফিসারের পিছনে অন্যজনকে লেলিয়ে দেওয়া হচ্ছে। গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংস করার জন্য আমার রাগ আছে। কেউ দোষী না হলেও তাকে হেনস্তা করা হলে আমি প্রতিবাদ করব। যারা রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নেই বলে চিৎকার করেন, তাদের মুখে লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে দেওয়া উচিত।

প্রসঙ্গত, ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা সারদা দুর্নীতি মামলায় জিজ্ঞাসাবাদ করতে কলকাতার পুলিশ কমিশনারের বাসায় হাজির হওয়ার পর তুলকালাম রাজ্য রাজনীতিতে। যে কারণে প্রতিবাদ করতে কলকাতার ধর্মতলার মেট্রো চ্যানেলে সামনে ধরনায় বসেন মুখ্যমন্ত্রী। আর মমতা তার এই প্রতিবাদকে মহাত্মা গান্ধীর ভাষায় বলতে চাইছেন ‘সত্যাগ্রহ’। তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা ব্যানার্জির অভিযোগ, নরেন্দ্র মোদির কেন্দ্র সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকে দেশের সব গণতান্ত্রিক কাঠামো ভেঙে ফেলছে। এ কারণে গণতন্ত্র রক্ষা করতে এবং দেশকে বাঁচাতেই তিনি ধরনায় বসেছেন।

জানা গেছে, রাজীব কুমার পড়াশোনা করেছেন এম এম কলেজ থেকে। ওখান থেকে পাশ করেই সিভিল সার্ভিসের পরীক্ষা দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেন। সফল হন। আইপিএস জীবনের প্রায় শুরুর দিন থেকেই তিনি রয়েছেন পশ্চিমবঙ্গতে। এর আগে ছিলেন নদীয়ার পুলিশ সুপার। ২০১৬ সালে সুরজিৎ কর পুরকায়স্থের জায়গায় তিনি আসেন কলকাতা পুলিশ কমিশনার হিসেবে। ২০১৩ সালে চিটফান্ড কেলেঙ্কারি মামলায় রাজ্য সরকার যে বিশেষ তদন্তকারী দল তৈরি করেছিল, তার নেতৃত্বের দায়িত্বে ছিলেন রাজীব কুমার।

এই সংবাদটি বাংলাদেশ প্রতিদিন অনলাইন পোর্টাল থেকে সংগ্রহীত

সংবিধানকে সমুন্নত রাখতে হবে: স্পিকার

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষেত্রে জনগণের মৌলিক অধিকারগুলো সংরক্ষণ করে ও নিশ্চয়তা দেয় সংবিধান। বাংলাদেশের সংবিধানে গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্ম নিরপেক্ষতা এবং জাতীয়তাবাদ- এ চারটি মূলনীতিকে সমুন্নত রাখা হয়েছে- যার ভিত্তিতে রাষ্ট্র পরিচালিত হচ্ছে। বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ সংবিধানগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের সংবিধান অন্যতম। উত্তরাধিকার কিংবা সমঝোতার সূত্রে নয়, বরং লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এ সংবিধান। এ সংবিধানকে সমুন্নত রাখতে হবে।

মঙ্গলবার ঢাকার ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ আয়োজিত ‘সংবিধান, গণপরিষদ এবং বাংলাদেশের সংবিধান’ শীর্ষক সেশনে তিনি এসব কথা বলেন।

১৫টি দেশের ২৯ জন বিদেশিসহ ৮৪ জন বিগ্রেডিয়ার জেনারেল/যুগ্মসচিব পদ মর্যাদার সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ অংশগ্রহণে ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ পরিচালিত এনডিসি ২০১৯ কোর্সের এই সেশনে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, রাষ্ট্রের তিনটি অঙ্গ- নির্বাহী বিভাগ, আইন সভা ও বিচার বিভাগ-সংবিধান অনুযায়ী জনগণের স্বার্থেই কার্যাবলি সম্পাদন করে থাকে। সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৭ অনুযায়ী প্রজাতন্ত্রের সব ক্ষমতার মালিক জনগণ’ উল্লেখ করে স্পিকার বলেন, জনগণের কল্যাণের বিষয়টি নিশ্চিত করতে রাষ্ট্রের তিনটি অঙ্গের কার্যাবলির মধ্যে সমন্বয় থাকতে হবে। স্পিকার আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জিত হয়। স্বাধীনতার অতি স্বল্প সময়ের মধ্যে ১৯৭২ সালের ৪ নভেম্বর জাতিকে তিনি উপহার দিয়েছেন এ অনন্য সংবিধান।

এ সময় ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্সের অংশগ্রহণকারীবৃন্দ, ফ্যাকাল্টি মেম্বার ও স্টাফ অফিসাররা উপস্থিত ছিলেন।

এই সংবাদটি বাংলাদেশ প্রতিদিন অনলাইন পোর্টাল থেকে সংগ্রহীত

‘অ্যান্ড্রয়েড ফোন’ দিলেই মিলছে ছাত্রলীগের পদ!

মাত্র ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা মূল্যের একটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন দিলেই মিলছে হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের গুরুত্বপুর্ণ পদ! এমনকী যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকের পদও বিক্রির দর কষাকষি হচ্ছে একটি অ্যান্ড্রয়েড ফোনের বিনিময়ে। এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে এই দাম-দর কষা-কষির অডিও কথোপকথন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। যদিও অভিযুক্তের দাবি এটি মজা করে চাওয়া হয়েছে।

জানা যায়, হবিগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি দেয়া ভেঙে নতুন কমিটি দেয়া হবে। এরই ধারাবাহিকতায় আজমিরীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটির জন্য দৌড়ঝাপ চলছে উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে। শৃঙ্খলার জন্য জেলা কমিটি থেকে উপজেলা পর্যায়ের বর্তমান কমিটির কাছে নতুন কমিটির জন্য তালিকা চাওয়া হয়েছে। আর এ সুবাদে আজমিরিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সস্পাদক কর্মীদের পদ দেয়ার কথা বলে অতিরিক্ত সুবিধা নেয়ার চেষ্টা করছেন।

এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে দাম-ধর কষা-কষির একটি অডিও কথোপকথন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ‘আজমিরীগঞ্জের বাণী’ নামক একটি ফেসবুক আইডি থেকে ছড়িয়ে দেয়া হয়। বিষয়টি নিয়ে খোদ ছাত্রলীগের অনেক নেতাকর্মীরাই ক্ষোভ জানিয়েছেন।
ফাঁস হওয়া অডিও রেকর্ড থেকে জানা যায়, আজমিরীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন ও একই উপজেলার বিরাট গ্রামের ছাত্রলীগ কর্মী আমিনুলের হকের মধ্যকার পদ-পদবি নিয়ে দর কষা-কষি চলে। এক পর্যায়ে আমিনুল হক আমির হোসেনকে জিজ্ঞেস করে একটি অ্যান্ড্রয়েড ফোন দিলে কোন পদ দেয়া হবে। প্রশ্নের জবাবে আমির হোসেন বলেন, আজমিরীগঞ্জ উপজেলার সর্বোচ্চ পদ দেয়া হবে। এমনকি যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বা সাংগঠনিক দেয়ার প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন আমির হোসেন। বিনিময়ে তাকে ৫/৬ হাজার টাকা মূল্যের একটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল দেয়ার কথাও জানান তিনি। আমিনুল তার কাছে এত টাকা নাই বলে আমির হোসেনকে জানালে বাজারের মঞ্জিল মিয়ার দোকান থেকে বাকিতে মোবাইল কেনার জন্য পরামর্শ দেন আমির হোসেন।

এই বিষয়ে আজমিরীগঞ্জ উপজেলা সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন বলেন, বিষয়টি সম্পূর্ণ অনাকাঙ্ক্ষিত। মজা করে কথা-বার্তাগুলো হয়েছে। আমাকে ফাঁসানোর জন্যই এই রেকর্ডটা ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

এই সংবাদটি বাংলাদেশ প্রতিদিন অনলাইন পোর্টাল থেকে সংগ্রহীত

জামিনে মুক্ত নিপুণ রায় চৌধুরী

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের পুত্রবধূ এবং দলটি নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরী জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।

মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে তিনি মুক্তি পান বলে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের ব্যক্তিগত সহকারী মো. শাহিন গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত ১৫ নভেম্বর নাশকতার মামলায় রাত ৮টার দিকে কাকরাইলের নাইটিঙ্গেল মোড় থেকে নিপুণ রায় এবং সঙ্গীতশিল্পী ও বিএনপি নেত্রী বেবী নাজনীনকে আটক করে পুলিশ। পরে বেবী নাজনীনকে ছেড়ে দিলেও নিপুণ রায়কে তিনটি মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

প্রসঙ্গত, নিপুণ রায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের পুত্রবধূ ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী মেয়ে।
বিডি-প্রতিদিন

এই সংবাদটি বাংলাদেশ প্রতিদিন অনলাইন পোর্টাল থেকে সংগ্রহীত

চলতি সপ্তাহে ডাকসু নির্বাচনের তফসিল: ঢাবি উপ-উপাচার্য

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনের তফসিল চলতি সপ্তাহেই ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) ড. মুহাম্মদ সামাদ। এছাড়াও ক্যাম্পাসে ক্রিয়াশীল অধিকাংশ ছাত্রসংগঠনের পক্ষ থেকে ভোটকেন্দ্র একাডেমিক ভবনে স্থাপন করার দাবি থাকলেও গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নির্বাচনের ভোটকেন্দ্র হলগুলোতেই হচ্ছে বলে তিনি জানান।

আগামী ১১ মার্চ অনুষ্ঠেয় ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে চূড়ান্ত প্রস্তুতিমূলক সভা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। মঙ্গলবার উপাচার্য অফিস সংলগ্ন আব্দুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) ড. মুহাম্মদ সামাদ।

সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। এতে আরও উপস্থিত ছিলেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দীন, চীফ রিটার্নিং অফিসার অধ্যাপক ড. এস এম মাহফুজুর রহমান, রিটার্নিং অফিসারগণ, বিভিন্ন হলের প্রাধ্যক্ষ, প্রক্টর ও সহকারী প্রক্টরবৃন্দ।
সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র-সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা হয়। উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র-সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতিতে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং সুষ্ঠুভাবে এই নির্বাচন সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতাও চান তিনি।

সভায় চিফ রিটার্নিং অফিসার অধ্যাপক ড. এস এম মাহফুজুর রহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র-সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচনের সর্বশেষ অগ্রগতি, প্রস্তুতি ও করণীয় সম্পর্কে সকলকে অবহিত করেন। তিনি সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে এ নির্বাচন পরিচালনার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

সভা শেষে বিকেলে অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ সাংবাািদকদের বলেন, ‘নির্ধারিত ১১ মার্চ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্য রেখেই আমরা কাজ করছি। আজ থেকে সাত দিনের মধ্যেই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে।’

এর আগে, গত ২৯ জানুয়ারি ডাকসুর গঠনতন্ত্র ও আচরণবিধির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে ভর্তি স্নাতক বা স্নাতকোত্তরে অধ্যয়নরত, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নিয়মিত স্নাতকোত্তর শেষে একাধিক স্নাতকোত্তর বা সান্ধ্যকালীন স্নাতকোত্তর কোর্সে অথবা এমফিলে অধ্যয়নরত ৩০ বছরের মধ্যে থাকা যেকোনো শিক্ষার্থী এবারের নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারবেন। তবে যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক করেননি, তারা সেই সুযোগ পাবেন না। এ সময় নির্বাচনের ভোটকেন্দ্র গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আবাসিক হলে স্থাপনের সিদ্ধান্তও নেয় সর্বোচ্চ সিন্ডিকেট।

এই সংবাদটি বাংলাদেশ প্রতিদিন অনলাইন পোর্টাল থেকে সংগ্রহীত

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*