ফরিদপুরে চাঁদাবাজির মামলায় আ’লীগ নেতা কারাগারে

ফরিদপুরে মাছের আড়তদারের করা চাঁদাবাজির মামলায় জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক অমিতাভ বোসকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

সোমবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে কঠোর গোপনীয়তার মধ্য দিয়ে শহরের সিংপাড়া এলাকার একটি সড়ক থেকে অমিতাভকে গ্রেফতার করা হয়। দুপুর ১টার দিকে জেলার মুখ্য বিচারিক হাকিমের আদালতে হাজির করা হলে আদালত তাকে জেলা কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

অমিতাভ বোস শহরের সিংপাড়া মহল্লার বাসিন্দা হরিদাস বোসের ছেলে। এর আগে তিনি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ২০০৯ সালের নির্বাচনে তিনি ফরিদপুর সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

কোতয়ালি থানার এসআই মো. মোয়াজ্জেম হোসেন সাংবাদিকদের জানান, গত ১২ ফেব্রুয়ারি অমিতাভের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলাটি করেন শহরের গোয়ালচামটের বাসিন্দা হাজী শরীয়তুল্লাহ পৌর কাঁচাবাজারের মাছের আড়তদার আপন দত্ত।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, গত ১০ ফেব্রুয়ারি রাত আনুমানিক সোয়া ৮টার দিকে অমিতাভসহ অজ্ঞাতনামা আরও ৭-৮ জন ব্যক্তি বাদীর আড়তে এসে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। বাদী চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে অমিতাভসহ অন্যরা তার ক্যাশবাক্স ভেঙ্গে নগদ ৭০ হাজার টাকা নিয়ে যান।

এবার বিমানবন্দরে অস্ত্রসহ আওয়ামী লীগ নেতা আটক

বিমানে ওঠার আগে ঘোষণা ছাড়াই অস্ত্র নিয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রবেশের অভিযোগে যশোরের চৌগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফুলসর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মেহেদী মাসুদ হোসেনকে আটক করা হয়েছে।

সোমবার তাকে বিমানবন্দর থেকে আটক করে এভিয়েশন নিরাপত্তা সংস্থা এভসেক।

এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে বিমানবন্দর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাকে ফ্লাইট থেকে অফলোড করে সন্ধ্যায় গ্রেফতার দেখিয়ে থানায় সোপর্দ করা হয়। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক উইং কমান্ডার আবদুল্লাহ আল ফারুক বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি ঘোষণা না দিয়ে তার বৈধ অস্ত্র নিয়ে বিমানবন্দরে প্রবেশ করতে যাচ্ছিলেন। হ্যাভি লাগেজ গেটের স্ক্যানারে অস্ত্রটি শনাক্ত হয়। লাগেজ গেট পার হওয়ার পরই মেহেদী হোসেনের কাছে তার ব্যাগে অস্ত্র আছে কিনা জানতে চায় নিরাপত্তাকর্মীরা।

এ সময় মেহেদী বলেন, অস্ত্র আছে। সেটি তার বৈধ অস্ত্র। তিনি অস্ত্রটি সম্পর্কে ঘোষণা দিতে চান। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বলেন, এখন আর ঘোষণা দেয়ার কোনো ধরনের সুযোগ নেই। আর্চওয়ে পার হওয়ার আগেই গেটে এ ঘোষণা দেয়ার দরকার ছিল। ঘোষণা না দেয়ায় আপনাকে আটক করা হল। এরপর তাকে বিমানবন্দর থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।

জানা গেছে, সোমবার বিকালে যশোর যাওয়ার জন্য মেহেদী মাসুদ চৌধুরী বিমানবন্দরে হাজির হয়ে সঙ্গে থাকা একটি পিস্তল সম্পর্কে কোনো ধরনের ঘোষণা না দিয়েই চলে যান গেট পেরিয়ে। এ সময় স্ক্যানার মেশিনে তার ব্যাগেজে অস্ত্র ভেসে উঠলে তাকে নিরাপত্তাকর্মীরা ডেকে আনেন। তার পরিচয় জানতে চাইলে তিনি নিজেকে চৌগাছা ফুলছড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পরিচয় দেন। তখন জানতে চাওয়া হয়, ব্যাগের পিস্তল সম্পর্কে ঘোষণা দেননি কেন।

এ ঘটনায় তাকে আটক করা হবে বলেও তাৎক্ষণিক জানানো হয়। এরপর তিনি টেলিফোনে বিভিন্ন জায়গায় ফোন করে তদবির করতে থাকেন। তাতে কোনো কাজ না হওয়ায় তিনি ‘সরি’ বলে বারবার দুঃখ প্রকাশ করেন। কিন্তু নিরাপত্তাকর্মীরা এভসেকের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে পুলিশ ডেকে আনেন এবং বিমানবন্দর থানার পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। সন্ধ্যায় তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা দেয়ার পর গ্রেফতার দেখানো হয়।

এদিকে একের পর এক অস্ত্র নিয়ে বিমানবন্দরে প্রবেশের ঘটনা কেন্দ্র করে পুরো বিমানবন্দরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা কঠোর করা হয়েছে। এখন থেকে ঘোষণা ছাড়া কারও কাছ থেকে অস্ত্র বা এক্সপ্লোসিভ পাওয়া গেলেই তাকে আটক করা হবে বলে জানিয়েছেন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

এ কারণে এখন সব যাত্রীকেই তল্লাশি করা হচ্ছে আপাদমস্তক। এতে প্রায় সময়ই বিমানবন্দরের প্রবেশমুখে ভিড় জমে যাচ্ছে। এখন আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে গেটের কাছে পৌঁছেই ঘোষণা দিচ্ছেন তার কাছে বৈধ অস্ত্র আছে। তবে কিছু প্রভাবশালী ভিআইপি এ ধরনের তল্লাশিতে নাখোশ বলে জানিয়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*