গণতন্ত্র এখন কবরে চলে গেছে : ড. মোশাররফ

বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, এই সরকারের কর্মকাণ্ডে মনে হচ্ছে গণতন্ত্র যেন এখন কবরে চলে গেছে। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকেও হত্যা করা হয়েছে। পরিতাপের বিষয় স্বাধীনতার ৪৮ বছরে পরেও আজ সুশাসন, গণতন্ত্র নিয়ে আমাদের দুশ্চিন্তায় থাকতে হয়। ফেনীর নুসরাত জাহার রাফির হত্যার সাথে আওয়ামী লীগের লোকজন জড়িত বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

আজ সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে আদর্শ নাগরিক আন্দোলনের তৃতীয় বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত ‘গণতন্ত্র ও আইনের শাসন : কোন পথে বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, গণতন্ত্রের চেতনা আজ সর্বক্ষেত্রে অনুপস্থিত। মুখে চেতনার কথা বললেও এই আওয়ামী লীগই মুক্তিযোদ্ধের চেতনাকে ধ্বংস করেছে। তিনি বলেন, ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগের একক নির্বাচনের মাধ্যমে এদেশের গণতন্ত্র হোঁচট খেয়েছিল আর ২০১৮ সালে আগের রাতের নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে কবরে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

বিএনপি’র এই সিনিয়র নেতা অভিযোগ করে বলেন, দেশে এখন এক ব্যক্তির ইচ্ছা আর অনিচ্ছার উপরেই আইনের গতিপ্রবাহ নির্ধারিত হচ্ছে, বিচারও হচ্ছে। তিনি বলেন, ১/১১ এর অবৈধ সরকারের আমলে দায়ের করা আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ৯শ’ মামলা প্রত্যাহার করা হয়েছে। অথচ বেগম খালেদা জিয়ার কোনো মামলাই প্রত্যাহার করা হয়নি। বরং আরো মামলা দিয়ে তাকে অন্যায়ভাবে জেলখানায় বন্দি করে রাখা হয়েছে।

ফেনীর নুসরাত জাহার রাফির হত্যার সাথে আওয়ামী লীগের লোকজনই জড়িত বলে অভিযোগ করে তিনি বলেন, নুসরাত হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে তারা সবাই আওয়ামী লীগের। ওই মাদরাসার অধ্যক্ষ নিজেও ওলামা লীগের নেতা। তাই সরকার এই মামলাটিকে এখন ভিন্ন খাতে নেয়ার অপচেষ্টা করছে।

সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণস্থাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমাতুল্লাহ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*