ছাত্রদলের নেতৃত্বে নিয়মিতদের আনার পরিকল্পনা বিএনপির

জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব নিয়মিত শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)৷ সেই লক্ষ্যে বিএনপির পক্ষ থেকে ছাত্রদলের কমিটি বাতিল করে আগামী দেড় মাসের (৪৫ দিন) মধ্যে নতুন কমিটি গঠনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে৷

সোমবার রাতে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই ঘোষণা দেওয়া হয়৷ ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের তফসিল পরে জানানো হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়৷

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘আজ সোমবার জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের মেয়াদোত্তীর্ণ কেন্দ্রীয় সংসদ বাতিল করা হলো৷ আগামী ৪৫ দিনের মধ্যে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কাউন্সিলরদের মতামতের ভিত্তিতে নতুন কেন্দ্রীয় সংসদ গঠন করা হবে৷’

ছাত্রদলের অনুষ্ঠেয় কাউন্সিলে প্রার্থী হওয়ার যোগ্যতা—সংগঠনের প্রাথমিক সদস্য হওয়া, অবশ্যই বাংলাদেশের কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র হওয়া এবং শুধু ২০০০ সাল–পরবর্তী যেকোনো বছরে এসএসসি কিংবা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ৷

জানতে চাইলে বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি প্রথম আলোকে বলেন, ‘ধারাবাহিকভাবে নিয়মিত ছাত্রদের ছাত্রদলের নেতৃত্বে আনা হবে৷ হঠাৎ করে সেটি সম্ভব নয়, ধীরে ধীরে এটি করা হবে৷ নিয়মিত ছাত্ররাই যেন নেতৃত্বে আসতে পারে, সেদিকে আমাদের বেশি নজর থাকবে৷ দলের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত৷ আশা করছি, দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি সবাই শ্রদ্ধাশীল থাকবেন৷’

২০১৪ সালের অক্টোবরে রাজিব আহসানকে সভাপতি ও আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি গঠিত হয়৷ ২০১৬ সালের অক্টোবরে কমিটির মেয়াদ শেষ হলেও দুই বছর ধরে ওই কমিটিই দায়িত্ব পালন করে আসছিল৷

ফখরুলের ছেড়ে দেওয়া আসনে লড়ছেন যারা

বগুড়া-৬ (সদর) আসনে উপনির্বাচনে সাতজন প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। আজ সোমবার প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিনে চূড়ান্ত সাত প্রার্থীর তালিকা প্রকাশ করা হয়। কমিশনের পক্ষ রিটার্নিং কর্মকর্তা ও বগুড়া জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহবুব আলম শাহ প্রার্থীদের বৈধ তালিকা প্রকাশ করেন।

চূড়ান্ত প্রার্থীরা হচ্ছেন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়া প্রার্থী ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এস এম টি জামান নিকেতা, বিএনপি থেকে দলীয় মনোনয়ন পাওয়া এবং জেলা বিএনপির আহ্বায়ক গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ (জিএম সিরাজ), জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন পাওয়া নুরুল ইসলাম ওমর, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মনসুর রহমান, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের রফিকুল ইসলাম এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মিনহাজ ও সৈয়দ কবির আহম্মেদ।

জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বগুড়া-৬ আসনের উপ নির্বাচনে ২৭ মে মনোনয়ন পত্র যাচাই বাছাই শেষে বিএনপির দুই জনসহ আটজন প্রার্থীকে বৈধ ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে সোমবার মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের আগেই গোলাম মোহাম্মদ সিরাজকে বিএনপি থেকে চূড়ান্ত প্রার্থী ঘোষণা করা হয়। গত রোববার বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত চিঠিতে জিএম সিরাজকে দলীয় প্রতীক বরাদ্দের জন্য অনুরোধ জানানো হয়। এ কারণে বিএনপির অপর প্রার্থী রেজাউল করিম বাদশার মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়।

বগুড়া-৬ আসনটি জিয়া পরিবারের জন্য ‘সংরক্ষিত’ আসন হিসেবে পরিচিত । ১৯৭৯ থেকে ২০০৮ সালের নির্বাচন পর্যন্ত আসনটি একচ্ছত্র দখলে ছিল বিএনপির। এর মধ্যে ১৯৯১ সালের নির্বাচনে ধানের প্রতীকে বিজয়ী হয়েছিলেন সাবেক অর্থ প্রতিমন্ত্রী মুজিবর রহমান । ১৯৯৬, ২০০১ এবং ২০০৮ সাল ছাড়াও বাতিল ২২ জানুয়ারির নির্বাচনে টানা চার দফা বিপুল ভোটে বিজয়ী হন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এর মধ্যে ২০০৮ সালের নির্বাচনে ১ লাখ ৯৩ হাজার ৭৯২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন তিনি। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জেলা আওয়ামী লীগের প্রয়াত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন ভোট পান ৭৪ হাজার ৬৩৪।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির ‘একতরফা’ নির্বাচন বিএনপি বয়কট করে। আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমঝোতার মাধ্যমে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাংসদ হন মহাজোট মনোনীত জাতীয় পার্টির নুরুল ইসলাম ওমর।

দুর্নীতির মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারাদণ্ড মাথায় নিয়ে কারাগারে থাকায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ধানের শীষ প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে প্রায় দেড় লাখ ভোটের ব্যবধানে মহাজোট প্রার্থী নুরুল ইসলামকে হারিয়ে বিজয়ী হন। মির্জা ফখরুল শপথ না নেওয়ায় ৩০ এপ্রিল আসনটি শূন্য ঘোষণা করেন স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী। ৪ মে উপ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ২৪ জুন ইলেকট্রিক ভোটিং মেশিনে ভোটগ্রহণ হবে। কাল মঙ্গলবার চূড়ান্ত প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। উপনির্বাচনে বগুড়া-৬ আসনে ৩ লক্ষ ৮৭ হাজার ৪৫৮ জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*