রাজধানীতে মশার ওষুধ স্প্রে করে জানাতে হবে: হাইকোর্ট

মশা নিধনে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে প্রতিটি ওয়ার্ডে যথাযথভাবে এডিস মশার ওষুধ স্প্রে করার পর দুই সপ্তাহের মধ্যে তা আদালতকে জানাতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে রিটকারীর পক্ষে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ ও রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার শুনানি করেন।

শুনানিতে কর্পোরেশনের কার্যক্রমে অসন্তোষ প্রকাশ করে আদালত বলেন, সরকার দুই সিটি কর্পোরেশনের বাজেট বৃদ্ধি করেছে। সেই বাজেটের টাকা কোথায় যায়? আমরা এর আগে সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের বলেছিলাম যে, সামনে বর্ষা মৌসুম। মশা নিধনে ব্যাপক কার্যক্রম গ্রহণ করুন। যাতে এটা মহামারী আকারে ধারণ না করতে পারে।

‘কিন্তু এখন প্রতিনিয়ত গণমাধ্যমে দেখছি ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেড়েইে চলেছে। সরকার অর্থ বরাদ্দ দিচ্ছে কিন্তু সেটার যথাযথ বাস্তবায়নের দায়িত্ব কার, অবশ্যই সিটি কর্পোরেশনের। শুনানি শেষে দুই সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।’

রিটকারী আইনজীবী মনজিল মোরসেদ বলেন, আদালতের আগের একটি নির্দেশনা অনুযায়ী সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে রিপোর্ট দাখিল করা হয়। ওই রিপোর্টে ডেঙ্গু রোগবাহী এডিস মশা নিধনে ব্যবস্থা নেয়ার বিষয়ে উল্লেখ করা হয়েছে।

সেখানে অনেকগুলো নির্দেশনার ব্যাপারে তারা বলেছেন, ওষুধ ছিটানোর জন্য প্রত্যেকটা ওয়ার্ডভিত্তিক কমিটি গঠন করা হয়েছে। জনসচেতনতা বাড়াতে উঠান বৈঠক করার কথা বলা হয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকেও বিভিন্ন কমিটি করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*