দুই মেয়র মশা নিধনের ৫০ কোটি টাকা লুটপাট করেছে

নিউজ ডেস্কঃ ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের দুই মেয়র মশা নিধনের ৫০ কোটি টাকা লুটপাট করেছেন বলে দাবি করেছেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবং স্থানীয় সরকার, পল্লী

উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা। যে মেয়র মশা মারতে পারেন না তাদের ডেঙ্গু মশার মতই বিদায় করতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন

মহাজোটের শরীক দলের এই সংসদ সদস্য বুধবার (৭ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এডিস মশা নিধনে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে জাতীয় পার্টি আয়োজিত মানববন্ধন ও লিফলেট বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি

এসব কথা বলেন। সংসদীয় বিরোধী দলের এই মহাসচিব বলেন, ‘এখন সংসদের অধিবেশন নেই তাই আমরা সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে রাস্তায় দাঁড়াতে বাধ্য হয়েছি।’ রাঙ্গা অভিযোগ করেন, ‘ডেঙ্গু

পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। মশা নিধনের ৫০ কোটি টাকা লুটপাট করেছেন দুই মেয়র। যে মেয়র মশা মারতে পারেন না তাদের ডেঙ্গু মশার মতই বিদায় করতে হবে।’ দেশের বিভিন্ন জেলায় বন্যা প্রসঙ্গে

জাতীয় পার্টির মহাসচিব বলেন, ‘এ বছর বন্যায় মানুষ দীর্ঘ সময় পানিবন্দি ছিলেন। সরকারিভাবে যে ত্রাণ দেওয়া হয়েছে তাও অপ্রতুল। অনিয়ম হয়েছে ত্রাণ বিতরণে।’ প্রধানমন্ত্রী দেশে নেই বলেই অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলা বেড়ে গেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আরো পড়ুন>> ডেঙ্গু আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা বাড়তে থাকায় ডেঙ্গুকে ‘জাতীয় মহামারী’ হিসেবে ঘোষণা করেছে ফিলিপাইন। বাংলাদেশেও এটি দিনের পর দিন রেকর্ড ছাড়িয়ে যাচ্ছে।

ইতোমধ্যে বিভিন্ন গণমাধ্যমের তথ্যমতে মৃত্যুর সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গেছে। তবে এই অবস্থাতেও বাংলাদেশে এটিকে ‘মহামারী’ ঘোষণা করা হবে না বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেছেন, ‘এ অবস্থাকে আমরা মহামারি বলব না, আবার স্বাভাবিকও বলব না। তবে ডেঙ্গু রোগী বাড়ছে।’ বুধবার (৭ আগস্ট) রাজধানীর মুগদা হাসপাতালে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের

(বিএমএ) আয়োজনে ‘ডেঙ্গু জ্বরের চিকিৎসা, নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ’ শীর্ষক বৈজ্ঞানিক সেমিনার শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গত বছরের তুলনায় এবার ডেঙ্গু

রোগীর সংখ্যা তিনগুণ বেড়েছে, যারা আক্রান্ত হচ্ছেন, তাদের আমরা প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দিচ্ছি। তবে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। এই অবস্থাকে আমরা মহামারি বলবো না আবার স্বাভাবিকও বলব না।’ তিনি

জানান, ‘ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বাড়ছে, হাসপাতালগুলোতে যদি প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা দেয়ার জন্য শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিট, সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালসহ চারটি সরকারি হাসপাতাল প্রস্তুত করা হচ্ছে।’ গত

বছর এই সময় ১১ হাজার মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিল। এ বছর একই সময়ে এর সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে বলেও জানান জাহিদ মালেক। আনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা ৯ আসনের সংসদ সদস্য

সাবের হোসেন চৌধুরী, বিএমএ’র সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, মহাসচিব মোহাম্মদ ইহতেশামুল হক চৌধুরী, মুগদা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডাক্তার গোলাম নবী তুহিন। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আতিকুল হক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*