‘রাতের অন্ধকারে পালিয়ে যাওয়া ছাড়া সরকারের কোন পথ নাই’

আন্দোলন সংগ্রামের কথা উল্লেখ করে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বাবু গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, পৃথিবীতে যদি একদিন বাঁচতে হয়, একদিন বাঁচেন। কাপুরুষের মতো হাজার বছর বেঁচে লাভ নেই।

তিনি বলেন, আপনারা বার বার হাত তুলে বলছেন নেত্রীর মুক্তি চাই, নেত্রীর মুক্তির জন্য আন্দোলন করবেন, যখন আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে, আমরা আসা করব আপনারা সংগ্রামে নামবেন।

নেতাদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, নেতারা যার যেখানে বাড়ি সেখানে কর্মীদের পাশে থেকে আন্দোলন করবেন। রবিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজশাহী নগরীর মাদ্রাসা মাঠ সংলগ্ন ঈদগা রোডে বিভাগীয় সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

ক্যাসিনো অভিযান পরিচালনা নিয়ে গয়েশ্বর বলেন, মাত্র তিনটা রাস্তার টোকাই তাদের কাছে যদি এত টাকা থাকে। তাহলে যারা পতাকাবাহী তাদের কাছে কত টাকা আছে? ওই যে পার্লামেন্টে যায় আসে তাদের কাছে আছে কত টাকা? লক্ষ লক্ষ টাকা বিদেশে পাচার করেছে। গ্রাহক ব্যাংকে গেলে টাকা দিতে পারে না গ্রাহককে। কোন বিনিয়োগ নাই। ওই যে দরবেশ আছে মন্ত্রিসভায় শেয়ারমার্কেটের খবর কি? হল মার্কের হাজার কোটি টাকার খবর কি? বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে যে চুরি হয়ে গেল সেই টাকা উদ্ধার হচ্ছে না কেন? এই টাকা কার জনগণের টাকা।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, এগুলো জনগণের টাকা, এই টাকার হিসাব নিবে জনগণ। কিন্তু এই হিসাব দেয়া সম্ভব নয়। রাতের অন্ধকারে পালিয়ে যাওয়া ছাড়া এই সরকারের আর কোন বিকল্প পথ নাই। এরা দিনের বেলায় পালাতে পারবে না।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি প্রসঙ্গে বাবু গয়েশ্বর বলেন, আজ সতের কোটি মানুষ বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি চায়। চায় না শুধু একজন তার নাম শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘যারা পোশাক পরে (পুলিশ) আজকে সমাবেশে আসতে বাধা দিয়েছে তাদের জন্য শেখ হাসিনা আজ প্রধানমন্ত্রী। তিনি জনগণের ভোটে প্রধানমন্ত্রী হন নাই, আর কখনো প্রধানমন্ত্রী হওয়ার যোগ্যতা নেই।’

রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন এর সঞ্চালনায় সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, ইকবাল হোসেন মাহমুদ টুকু চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

আরও উপস্তিত ছিলেন- রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ-এমপি, নাদিম মোস্তফা, শ্যামা ওবায়েদ, শাহিন শওকত, ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মোস্তফা, অ্যাড মাহদুদা হামিদা, যুবদল সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, সিনিয়র সহ সভাপতি মুরতাজুল করিম বাদরু, স্বেচ্ছা সেবক দল সভাপতি শফিউল বারী বাবু, সাধারণ সসম্পাদক আব্দুল কাদের ভূইয়া জুয়েল, আমিরুল ইসলাম খান আলীম, শ্রমিক দল সভাপতি আনোয়ার হোসেন, তাতী দলের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, চেয়ারপাসনের মিডিয়া উইংয়ের কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার প্রমুখ।

এমআর/এনই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*